আসছে বিশালাকৃতির আইফোন ৯

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaগেজেট রিভিউআসছে বিশালাকৃতির আইফোন ৯

সম্প্রতি আইফোনের নতুন সংস্করণগুলোর সাথে সাথে সামনের শীতে এ্যাপলের কাছ থেকে আরো ভালো কিছুর আশাবাদ ব্যক্ত করা যায়। এক বিশ্লেষকের মতে, কিউপারটিনো থেকে বছরের শেষের দিকে আরো তিনটি নতুন ফোন আসছে।

RBC Capital Markets ‘র বিশ্লেষক Amit Daryananiর April 9 প্রকাশিত গবেষণাপত্র মোতাবেক এ্যাপল বছরের শেষের দিকে ২টি OLED ভিত্তিক এবং ১টি অপেক্ষাকৃত কম মূল্যের LCD ডিসপ্লে ভিত্তিক আইফোন বাজার ছাড়বে। শেষোক্ত ফোনটির নামই iPhone 9 হবার সম্ভাবনা রয়েছে ।

এটাই প্রথমবার নয় যে, আমরা এ্যাপলের কাছ থেকে বছরের শেষ লগ্নে এতগুলো নতুন ফোন পেতে যাচ্ছি। বিগত জানুয়ারিতে, KGI Securities এর বিশ্লেষক Ming-Chi Kuo এ্যাপল সংক্রান্ত যাবতীয় গুঞ্জনে/কানাঘুষা-র তথ্য প্রদান করে বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। তারই ভাষ্যমতে, এ্যাপল নতুন তিনটি ফোনের কাজে উদ্যোগ নিয়েছে যার মধ্যে আইফোন-এক্সের একটি বড় সংস্করণ উল্লেখ্য।

ফেব্রুয়ারিতে Bloomberg এর এক রিপোর্টে এ্যাপলের ট্রিপল আইফোন পরিকল্পনার ব্যাপারে বিস্তারিত লেখা হয়েছে। এর মধ্যেও LCD ডিসপ্লে ভিত্তিক আইফোনের ব্যাপারে জানান দেয়া হয়েছিল।

Investors Business Dailyতে Daryanani কর্তৃক রচিত রিসার্চ নোট অনুযায়ী, এ্যাপেলের নতুন প্রকল্পে ৫.৮ ইঞ্চির আইফোন-এক্সের একটি নতুন সংস্করণ আসন্ন; এর নামকরণ আইফোন এক্সএস হতে পারে। এছাড়াও, তাদের প্রকল্পে ৬.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে সমৃদ্ধ একটি বৃহত্তর সংস্করণ আইফোন এক্সএস প্লাস-ও রয়েছে।

উক্ত নামগুলো এ্যাপলের প্রথাগত নামকরণ রীতি অনুসরণ করবে। অর্থাৎ, নতুন কোনো মডেলের ফোনে নেক্সট জেনারেশন ভার্সনের ক্ষেত্রে একটি ‘এস’ সংযুক্ত হবে। ২০১৪তে আইফোন ৬ এর পর থেকে, এ্যাপল প্রতিবার একটি করে প্রচলিত/গতানুগতিক মডেল এবং উক্ত ফোনের একটি প্লাস সাইজ মডেল বাজার আনছে।

Daryanani র মতানুসারে, তৃতীয় ফোনটি একটি ৬.১ ইঞ্চি স্ক্রীণ সমৃদ্ধ LCD মডেলের ফোন হতে যাচ্ছে। Daryanani পূর্বোক্ত বিশ্লেষণগুলোর মতো এই রিসার্চ নোটটিও যদি সত্যি হয় তবে, এই আইফোন ৯ ফোনটিতে আইফোন এক্সের অনেকগুলো বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান থাকবে। তন্মধ্যে, Face ID unlocking technology র সুবিধাও থাকতে পারে। তবে, এতে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যের সরঞ্জাম যেমন: এলসিডি প্যানেল এবং আইফোন ৮ এর মত গ্লাস ব্যাক থাকবে।

বিশ্লেষকরা বিশ্বাস করছেন যে, এ্যাপলের উচিত হবে তাদের আসন্ন প্রকল্পগুলোর প্রতি ভোক্তা চাহিদা বৃদ্ধি করা। যদিও, তারা হলিডে কোয়ার্টারে রেকর্ড পরিমাণ আয় করতে সক্ষম হয়েছে। তবুও,ওয়াল স্ট্রীটের প্রত্যাশার তুলনায় আইফোনের বিপনন অপেক্ষাকৃম কম।

Daryananiর রিসার্চ নোটের অবশিষ্টাংশ অনুযায়ী, এ্যাপলের সাপ্লাই চেইন অংশীদারদের মাঝে আইফোনের এই নতুন সংস্করণগুলো নিয়ে প্রত্যাশার কমতি প্রতীয়মান। রিপোর্ট মোতাবেক, বছরের শেষার্ধে এ্যাপল ৮ থেকে ৯ কোটি নতুর ফোন তৈরী করতে যাচ্ছে। যা, গতবছরে প্রত্যাশাকৃত ৩৩% থেকে নেমে ২৫% হতে যাচ্ছে।

ক্যাটাগরিঃ গেজেট রিভিউ
ট্যাগঃ