ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য শাওমির ল্যাপটপ Mi Notebook Youth Edition

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaগেজেট রিভিউছাত্র-ছাত্রীদের জন্য শাওমির ল্যাপটপ Mi Notebook Youth Edition
Advertisements

শাওমি তার অবিশ্বাস্য দামের ভাল মানের স্মার্টফোনের জন্য সর্বাধিক পরিচিত, তবে চীনের এই প্রযুক্তি জায়ান্ট এছাড়াও ল্যাপটপ থেকে বেতার রাউটারসহ অন্যান্য আরও গ্যাজেট তৈরি করে। সম্প্রতি, Mi 8 লাইন-আপের দুটি নতুন স্মার্টফোন উন্মুক্ত করেছে। এই দু’টো ছাড়া, শাওমি একটি নতুন ল্যাপটপ চালু করেছে – Mi Notebook Youth Edition। এই ল্যাপটপটি ছাত্র-ছাত্রীদের কথা মাথায় রেখে কম দামে বাজারে এনেছে শাওমি।

শাওম ‘র Mi Notebook Youth Edition টি তার ল্যাপটপ লাইনআপের সবচেয়ে শক্তিশালী এমআই নোটবুক-ব্র্যান্ড ল্যাপটপের একটি বাজেট-ল্যাপটপ ভার্সন। এমআই নোটবুকে ইন্টেল কোর আই৭ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছিল।

এমআই নোটবুক ইয়ুথ এডিশনে রয়েছে ১৫.৬ ইঞ্চি এফএইচডি ডিসপ্লে। এতে থাকছে অষ্টম জেনারেশান Core i5 প্রসেসার, ২ জিবি এনভিডিয়া জিফোর্স এমএক্স১১০ (MX110) গ্রাফিক্স কার্ড আর ৮ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম। এর সাথেই থাকবে ১২৮ জিবি এসএসডি আর ১ টেরাবাইট পর্যন্ত হার্ড ড্রাইভ।

গেমিং অন্তপ্রাণ তরুণ-তরুণীদের জন্য এই ল্যাপটপটি একটি আদর্শ গেজেট হতে পারে। ২ জিবি ডেডিকেটেড গ্রাফিক্স কার্ড এতে প্রচলিত গেমগুলো অনায়াসে চালানো যাবে। অন্যান্য দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি অবসর মুহূর্তে সতীর্থদের সাথে সময় কাটানোর জন্য এটি একটি আদর্শ গেজেট হবে বলে শাওমি আশা করছে।

এমআই নোটবুক ইয়ুথ এডিশন ল্যাপটপে ডুয়াল কুলিং সিস্টেম ব্যবহার করেছে শাওমি। এই টেকনোলজিতে দুটি আলাদা পাইপের মাধ্যমে প্রসেসার ঠান্ডা রাখার কাজ করা হবে। এমআই নোটবুক ইয়ুথ এডিশন তে থাকবে ইউএসবি ২, গিগাবিট ইথারনেট পোর্ট, এইচডিএমআই ইন্টারফেস, ৩.৫ মিমি হেডফোন জ্যাক আর ইউএসবি ৩ পোর্ট। থ্রি-ইন-ওয়ান কার্ড রিডারকে ব্যবহার করা যাবে মেমোরি কার্ড থেকে ছবি বা গান হার্ডডিস্কে কপি করে রাখার কাজে।

Mi Notebook Youth Edition ল্যাপটপে হাই-কোয়ালিপির স্পিকার ডুয়াল ৩ ডাব্লু ব্যবহার করেছে শাওমি। এর সাথেই একটি সম্পূর্ণ আলাদা কি-বোর্ড থাকবে।

আরও পড়ুন:  নোকিয়া এক্স৬ - ফিচারে ঠাসা বাজেট ফোন

অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে ল্যাপটিপে থাকছে প্রি-ইন্সটলড Windows 10। তবে, এই ল্যাপটপে কি ধরনের ব্যাটারী ব্যবহার করা হয়েছে, সে ব্যাপারে এখনো জানা যায়নি।

১৯.৯ মিমি চওড়া এই ল্যাপটপের দাম ৪,৫৯৯ ইউয়ান, যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৪৮,৫০০ টাকা। আর, ল্যাপটপটি দু’টি রঙে পাওয়া যাবে – কালো এবং সাদা।

তবে, বর্তমানে এই ল্যাটপটটি কেবল চিনের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। পরবর্তীতে অন্যান্য দেশের এটি উন্মুক্ত করা হবে, যদিও এ ব্যাপারে শাওমি’র পক্ষ থেকে কোন নির্দিষ্ট তারিখ জানানো হয়নি।

আরও রয়েছে:
ক্যাটাগরিঃ গেজেট রিভিউ
ট্যাগঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.