ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফিতে (landscape photography) সাফল্যের জন্য ১২ টি টিপস

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaফটোগ্রাফিল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফিতে (landscape photography) সাফল্যের জন্য ১২ টি টিপস
Advertisements

আপনি প্রোফেসনাল ফটোগ্রাফ হন বা মাত্র শুরু করছেন, কিছু জিনিস অনেক কমন। বাস্তবে আপনি আপনার সামর্থ্য আর দেখা এবং কম্পোজিং এর দক্ষতার উপর যতই আস্থাবান হন না কেন, সবার উপর হচ্ছে প্রকৃতি। আবহাওয়া প্রতিকূল অবস্থায় থাকলেও দর্শনীয় ল্যান্ডস্কেপ ছবি তুলতে সাহায্য করবে।

ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফিতে সাফল্যের টিপস

১। লোকেশন (Location)

ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফি র জন্য পরিকল্পনা অত্তান্ত জরুরি, এটি Landscape ফটোগ্রাফির প্রকৃত প্রক্রিয়া। আপনি কোথায় যেতে চলেছেন তার একটি সুস্পষ্ট ধারণা থাকা উচিত এবং দিনের কোন সময় আপনি সেরা ফটোগ্রাফটি ক্যাপচার করতে সক্ষম হবেন। মানচিত্র কিভাবে পড়বেন, তা শিখুন এবং বুঝতে শিখুন কীভাবে আপনি নিখুঁত অবস্থান খুঁজে পেতে পারেন।

আপনার সঠিক অবস্থান পরিকল্পনা করে, আপনি বেশি সময় On Spot থাকতে সক্ষম হবেন এবং নিশ্চিত হন যে আপনি নিরাপদে এবং প্রচুর সময় পাচ্ছেন এবং ফিরে আসার পথ খুঁজে পাচ্ছেন, যা সাধারণত সূর্যাস্ত’র পরে হয়।

২। ধৈর্য (Patience)

একটি perfectly composed ছবি ধ্বংস করতে অধৈর্যই যথেষ্ট। ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফির জন্য ধৈর্য প্রয়োজন, মেঘলা আকাশ সরে গিয়ে সূর্য আসার অপেক্ষা করুন। ধৈর্য সহকারে on spot এ অবস্থান করাই সফলতার চাবিকাঠি। যাতে করে যদি বেশি সময় ধরে থাকতে হয় তাহলে যেন থাকতে পারেন। তাই আবহাওয়ার পূর্বাভাসগুলি বের হবার আগে নিশ্চিত করুন, আপনার প্রয়োজনীয় আবহাওয়া নিশ্চিত করে আপনার সুযোগকে বাড়িয়ে তুলুন।

৩। অলসতা ত্যাগ করুন

ভিন্ন এ্যাঙ্গেল থেকে ছবি তুলুন যেটা আগে কখনো কেও দেখেনি। একটি পর্বতের উপরে থেকে নেওয়া একটি ছবির জন্য বিশাল পরিমাণ সময় এবং প্রচেষ্টার প্রয়োজন, এটি একটি দৃশ্য যে অধিকাংশ মানুষ দেখতে পাবে না। তাই সহজে পৌঁছানো পয়েন্ট এ না গিয়ে একটু কঠিন পয়েন্টটাতে যান। তবে অবশ্যই নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেই যাবেন।

৪। সেরা আলোর সঠিক ব্যবহার

আলো হচ্ছে Photography’র সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় এবং Landscape Photography তে আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ । আপনার location আর composition যতই ভাল হক না কেন, যদি আলোটা ভালো না হয়, তাহলে ছবিটি সুন্দর হবে না। সেরা আলোটি পাবেন সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের সময়। প্রখর রোদে কখনই ছবি ভালো আসবে না।

[adinserter block=”1″]

কিন্তু ভিন্ন আলোতে landscape করাটাও আবার এক ধরনের চ্যালেঞ্জ। উদাহরণস্বরূপ, ঝড় বা মেঘলা দিনে ও ছবি তোলা যায়। যতটা সম্ভব সেরা আলোটি ব্যবহার করতে হবে এবং এটি আপনার ছবিগুলোকে প্রভাবিত করতে সক্ষম হবে।

৫। Tripod ব্যবহার করুন

একটি Tripod, landscape photography এর ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রাখে। Low light condition এ Tripod ছাড়া আপনাকে ISO বাড়াতে হবে Camera এর ঝাঁকুনি রোধ করতে, যেটা আবার অনেক নয়েজ (noise) নিয়ে আসবে ছবিতে। যদি আপনি একটি slow shutter বা Long exposure ব্যবহার করে একটি দৃশ্য ক্যাপচার করতে চান (উদাহরণস্বরূপ, মেঘ বা পানির movement ক্যাপচার করতে), Tripod ছাড়া আপনি কোনভাবেই Camera ঝাঁকি থেকে বাঁচাতে সক্ষম হবেন না।

৬। Depth of Field বাড়ান

Depth of Field নির্বাচন Landscape photography’র একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। Landscape এর জন্য Foreground এবং Background অনেক Sharp হতে হবে। তাই F8 বা F11 দিয়ে শুরু করুন, প্রয়োজনে আরও বাড়ান। সাথে ISO এবং Shutter Speed খেয়াল রাখুন।

৭। কম্পোজিশন (Composition)

Post production এ composition ঠিক করার চেয়ে যতটা সম্ভব ছবি তোলার সময়ে composition ঠিক করুন।

যে দৃশ্যটি আপনি ভিউফাইন্ডারের মাধ্যমে দেখছেন, তা যদি ভালো না লাগে তাহলে এটি চূড়ান্ত আউটপুটেও ভাল দেখাবে না। এ ক্ষেত্রে আপনি Rules of Third ব্যবহার করতে পারেন।

কিন্তু পরিশেষে আপনাকে একটি সুন্দর, কালারফুল ও আকর্ষনীয় দৃশ্য দেখতে সক্ষম হতে, নিজেকে প্রশিক্ষিত করতে হবে এবং আপনার মনের মধ্যে তা বিশ্লেষণ করতে হবে। অনুশীলন আপনাকে সেই লক্ষে পৌঁছে দিবে। তবে তাড়াহুড়ো করবেন না।

৮। ND, GND, Polarizing Filter ব্যবহার করুন

Graduated Natural Density Filter (Yosemite)
Graduated Natural Density Filter (Yosemite)

ND, GND, Polarizing এই Filter গুলো একজন Landscape photographer এর নিত্য দিনের সঙ্গী। আপনাকে কখনো কখনো available light কে manipulate করতে হতে পারে। যেমন, পানির উপরিভাগে অতিরিক্ত আলোর reflection দুর করতে Polarizing দরকার।

Circular Polarizing Filter (CPL)
Circular Polarizing Filter (CPL)

ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফির একটি বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, জমিন (background) (যেটা সাধারণত একটু অন্ধকার থাকে) আর আকাশ (sky) (যেটা সাধারণত উজ্জ্বল থাকে) – এই দুটির মধ্যে ব্যালান্স (balance) করা। সেক্ষেত্রে আপনি GND Filter ব্যবহার করতে পারেন। এটা যদিও software এ নকল করা যায়। তবুও, যতটা সম্ভব ক্যামেরাতে সব কাজ করে ফেলা ভাল।

৯। হিস্টোগ্রাম (Histogram) ব্যবহার করুন

হিস্টোগ্রাম (Histogram)
Under Exposure, Over Exposure এবং Perfect Exposure হিস্টোগ্রাম গ্রাফ যে রকম দেখায়

হিস্টোগ্রাম (Histogram) খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি টুল, এটা বুঝার চেষ্টা করুন। Histogram একটি সহজ গ্রাফ যা আপনার ছবির বিভিন্ন চ্যানেল ডিস্ট্রিবিউশন দেখায়। গ্রাফের বাম দিকে অন্ধকার টোন এবং গ্রাফের ডান দিকটি উজ্জ্বল টোন প্রদর্শন করে।

উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনি দেখেন যে, গ্রাফের বেশিরভাগ একপাশে স্থানান্তরিত হয়, তবে এটি একটি ইঙ্গিত যে আপনার ছবিটি খুব হালকা বা গাঢ় (overexposed বা underexposed)। খেয়াল রাখবেন যেন এটি মাঝখানে থাকে।

১০। ভালো ছবি

ভালো ছবি পেতেই হবে, ছবি তোলার আগেই তা নির্ধারণ করে ফেলবেন না। সেক্ষেত্রে উল্টাটাই ঘটতে পারে। তাই সময় নিন; প্রয়োজনে আবার আসবেন, বা, অপেক্ষা করবেন ।

১১। RAW mode তে ছবি তুলুন

অভিজ্ঞ ফটোগ্রাফারগণ শুধু RAW মুড এ ছবি তুলতে বলেন। RAW তে ছবি তুললে post-production এর সময় ছবির গুণগত মানের সাথে আপোষ না করে (quality lost) ছবি এডিট করতে পারবেন। আর যে কোনো ফরম্যাটে সেভ করতে পারবেন। আর যদি JPEG এ ছবি তোলেন, তাহলে তা RAW তে রূপান্তর করতে পারবেন না।

১২। এক্সপেরিমেন্ট

সব টেকনিক, রুল, ছবির কম্পোজিশন এবং প্রসেসের ক্ষেত্রে সাহায্য করে। ডিজিটাল ফটোগ্রাফিতে (digital photography) খরচ নাই। তাই rules ভঙ্গ করুন, দেখবেন নিজস্ব একটা স্টাইল খুঁজে পাচ্ছেন। দৃষ্টিনন্দন এর জন্য অবশ্যই রুলস ভাঙ্গতে পারেন।

ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফি হল সবচেয়ে বহুল পরিচিত ও বহুল চর্চিত একটি অধ্যায়, যেটা অপেশাদার এবং পেশাদার ফটোগ্রাফার, সবাই করে থাকেন। কঠোর পরিশ্রম এবং ধৈর্যের সাথে আপনি যে ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফি করবেন, তা আপনার পোর্টফোলিওতে দেখতে চমৎকার লাগবে।

লেখা ও ছবি: Faisal Md Mollah (https://www.facebook.com/faisal.mohammed.52687506)

পড়ার মত আরও আছে:

ক্যাটাগরিঃ ফটোগ্রাফি