শীর্ষ ১২টি টেক কোম্পানী: সমাজ বদলের কারিগর যারা

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaবিজ্ঞান ও প্রযুক্তিশীর্ষ ১২টি টেক কোম্পানী: সমাজ বদলের কারিগর যারা
Advertisements

গত এক যুগে জায়ান্ট টেক কোম্পানী (giant tech companies) গুলোর আর্থিক মূল্যমান (value) হিমালয়ের শীর্ষকে ছাড়িয়ে নতুন শীর্ষবিন্দু ছোঁয়ার প্রতিযোগিতায় লিপ্ত আছে। প্রত্যেকটি কোম্পানী নিত্য নতুন উদ্ভাবন দিয়ে নতুন নতুন পণ্য ভোক্তাদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে, এ বছরের পণ্য পরের বছরই সেকেলে হয়ে যাচ্ছে।

দশ বছর আগে এই সকল বিশাল, দ্রুত বর্ধিষ্ণু করপোরেশনগুলো টেকনোলজিকে মানুষের কল্যাণে আরও উন্নত করার প্রতিযোগিতা করত। তারা মানুষের চোখে ছিল হিরো। বর্তমান সময়ে এই কোম্পানীগুলোর প্রযুক্তি-নির্ভর পণ্য আমাদের দৈনন্দিন জীবনের সাথে একেবারে মিলে-মিশে একাকার করে দিয়েছে – যা আমরা কখনও কল্পনাও করি নাই।

পণ্যের বিপননে এই সকল কোম্পানীর এমন সফলতা এগুলোতে অর্থলগ্নীকারীদের অবিশ্বাস্য বিত্তশালী হয়ে উঠতে সহায়তা করেছে।

১. অ্যাপল (Apple)

অ্যাপল কোম্পানী (Apple)
অ্যাপল (Apple) (Photo: pixabay)

মজার ব্যাপার হল, অ্যাপল কোম্পানীর প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জবস (Steve Jobs) কে ১৯৮৫ সালে কোম্পানী থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। তখন জবস’র বয়স ছিল ৩০ বছর।

অ্যাপল সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • ১৯৭৬ সালের এপ্রিল স্টিভ জবস, স্টিল ওজনিয়াক এবং রোনাল্ড ওয়েন ত্রয়ের হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় অ্যাপল কোম্পানিটি।
  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: টিম কুক
  • মোট এমপ্লয়ি: ১২৩,০০০
  • হেডকোয়ার্টার: কুপারটিনো, ক্যালিফোর্নিয়া (Cupertino, CA)
  • বাজার মূল্যধন: এক হাজার কোটি ডলার
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধি: ৭৭০%

অ্যাপল কোম্পানীকে পাঠকদের কাছে নতুন করে পরিচয় করে দেয়ার কোন প্রয়োজন পড়ে না – ২০১৫ সালে গ্লোব-অ্যাওয়ার্ড জয়ী “Steve Jobs” চলচ্চিত্র দেখলে এই কালজয়ী জায়ান্ট টেক কোম্পানীর প্রারম্ভিক চড়াই-উৎরাই সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। সত্তর এর দশকে এর তিন জন প্রতিষ্ঠাতার হাত ধরে যাত্রা শুরু করে এই কোম্পানীটি। তাদের প্রথম সফল বাণিজ্যিক পণ্যটি ছিল পারসোনাল কম্পিউটার (Personal Computer, PC)।

পরবর্তীতে তাদের পণ্যের তালিকায় যুক্ত হয়, আইফোন (iPhone)। এটি এমন একটি মোবাইল ফোন যার ব্যবসায়িক সাফল্য অ্যাপলকে ট্রিলিয়ন ডলার কোম্পানীর তকমা পাইয়ে দেয়।

২. আমাজন (Amazon)

Amazon
Amazon

আমাজন সম্পর্কে একটি মজার তথ্য। এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের ঠিকানা amazon.com। কিন্তু, কোম্পানীটি এর ডোমেইন নাম ঠিক করেছিল cadabra.com। কিন্তু, যখন দেখা গেল, খোদ আমাজনের আইনজীবি তাদের প্রস্তারিত ডোমেইন নামকে “cadaver.com” শুনেছেন, তখন সিদ্ধান্ত পাল্টে amazon.com রাখা হয়।

আমাজন সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রতিষ্ঠাতা: জেফ বেজোস, জুলাই ৫, ১৯৯৪
  • মোট এমপ্লয়ি: ৫৬৬,০০০
  • হেডকোয়ার্টার: সিয়াটল, ডব্লিউ.এ. (Seattle, WA)
  • বাজার মূল্যধন: ৮০০ বিলিয়ন ডলার
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধি: ২০২০%

৩. ফেসবুক (Facebook)

ফেসবুক (Facebook)
ফেসবুক (Facebook)

ফেসবুকের উত্থান নিয়েও একটি মজার কাহিনী রয়েছে। ফেসবুক যে দিন উদ্বোধন করা হয়, তার এক মাসের মধ্যে হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্ধেকের বেশি শিক্ষার্থী এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের তাদের প্রোফাইল তৈরী করেছিলেন।

ফেসবুক সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • ২০০৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারী মার্ক জাকারবার্গ, এডুয়ার্ডো সাভারিন, এন্ডরু ম্যাককালাম, ডাস্টিন মস্কোভিসান্ড ক্রিস হিউসকে নিয়ে ফেসবুক যাত্রা শুরু হয়।
  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: মার্ক জাকারবার্গ
  • প্রোডাক্ট: সোশাল নেটওয়ার্ক
  • মোট এমপ্লয়ি: ২৫,১০৫
  • হেডকোয়ার্টার: মেনলো পার্ক, ক্যালিফোর্নিয়া (Menlo Park, CA)
  • বাজার মূলধন: ৫২০ বিলিয়ন ডলার
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধি: ৪৮৩%

৪. আলফাবেট (Alphabet)

[adinserter block=”1″]

যদিও এই কোম্পানীর দুই প্রতিষ্ঠাতা স্ট্যানফোর্ড থেকে গ্রাজুয়েশন করেছেন, কিন্তু, ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভারে এক বছরের বেশী সময় ধরে ব্যাকরাব (BACKRUB) নামক একটা সার্চ প্রজেক্ট চালু রেখেছেন।

alphabet

আলফাবেট সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রতিষ্ঠাতা: ল্যারি পেজ ও সার্গেই ব্রিন (অক্টোবর ২, ২০১৫)
  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: ল্যারি পেজ
  • প্রোডাক্ট: বহুজাতিক কোম্পানি
  • মোট এমপ্লয়ি: ৭২,০৫৩
  • হেডকোয়ার্টার: মাউনটেন ভিউ, ক্যালিফোর্নিয়া
  • বাজার মূলধন: ৭৮৪.২ বিলিয়ন ডলার
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধি: ৪১১%

গুগলের দুই প্রতিষ্ঠাতা মিলে অবশেষে অ্যালফাবেট ইনকোরপোরেট প্রতিষ্ঠা করেন এবং এর অঙ্গ-প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিভিন্ন অংশে বিভক্ত করে দেন যাতে মূল কোম্পানী, গুগল’র উপর থেকে ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত চাপ কমে যায়। গুগল’র অধীনে অনেকগুলো ছোট-ছোট কোম্পানী পরিচালিত হত। প্যারেন্ট কোম্পানী মনে করলে ছোট কোম্পানীর কোনটাকে নিজের মধ্যে অঙ্গীভূত করে নিত। এই ধরণের ব্যাপক ভিত্তিক পূণঃগঠন কর্পোরেট ইতিহাসে বিরল।

৫. মাইক্রোসফট (Microsoft)

microsoft

মাইক্রোসফট সম্পর্কে মজার তথ্য হল, মার্কিন পূজিবাজারে (নাসডাক) অন্তর্ভূক্তির পূর্বে মাইক্রোসফট’র শেয়ারকে (NASDAQ:MSFT) নয় বার বিভক্ত করা হয়েছিল

মাইক্রোসফট সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: সত্য নাদালে
  • প্রোডাক্ট: সফটওয়্যার, কনজুমার ইলেকট্রিক পণ্য, পারসোনাল কম্পিউটার এবং সার্ভিস
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ বিল গেটস এবং পল এ্যালেন (এপ্রিল ৪, ১৯৭৫)
  • মোট এমপ্লয়ি: ১২৪,০০০
  • হেডকোয়ার্টার: রেডমন্ড, ওয়াশিংটন
  • বাজার মূলধন: ৭২৪.২ বিলিয়ন
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধি: ২৩১%

সত্তর দশকের মধ্যভাগে নিউ মেক্সিকোর আলবুকুরকু’তে মাইক্রোসফট কোম্পানীর গোড়াপত্তন করা হয়। প্রতিষ্ঠা লাভের পর শেয়ার বাজারে অন্তর্ভূক্তি লাভের জন্য ১০ বছর পেরিয়ে যায়; প্রাথমিক ভাবে ৬১ মিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ করতে সক্ষম হয় যার মাধ্যমে বিল গেটস বিপুল বিত্তের অধিকারী হিসাবে আত্মপ্রকাশ করতে সাহায্য করে।

এখন পর্যন্ত পৃথিবীর ইতিহাসে মাইক্রোসফট একটি নির্ভরযোগ্য টেক প্রতিষ্ঠান হিসাবে গণ্য হচ্ছে। মাইক্রোসফটের অনেক সফটওয়্যার বিশ্বব্যাপী অগণিত মানুষ ব্যবহার করে যাচ্ছে।

৬. টুইটার (Twitter)

Twitter

আপনি কি জানেন, জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক টুইটার এর আরেকটি নাম ছিল। জ্বি। এটি “ফ্রেন্ডসটকার” (Friendstalker) নামে পরিচিত ছিল।

টুইটার সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: জ্যাক ডোরসি
  • প্রোডাক্ট: সোশ্যাল মিডিয়া
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ জ্যাক ডোরসি, নোয়াহ গ্লাস, বিজ স্টোন এবং এভান উইলিয়াম (মার্চ ২১, ২০০৬)
  • মোট এমপ্লয়ি: ৩,৫৮৩
  • হেডকোয়ার্টার: স্যানফ্র‍্যান্সিসকো, ক্যালিফোরনিয়া
  • বাজার মূলধন: ২৪.১৫ বিলিয়ন
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ -১৮%

এটা খুব বেশী দিনের কথা নয়, যখন আমেরিকার প্রসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইট বিশ্বব্যাপী বোমা বিস্ফোরণের মত ফাটিয়ে চলেছেন। টুইটারে তার আগে থেকেই তার সরব উপস্থিতি জানিয়ে চলেছেন। ক্ষণিকের চিন্তা কিছুস শব্দের মাধ্যমে লিখে প্রকাশ করার পর তা ফলোয়ারদের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ছে, যা টুইটকারীর জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে চলছে এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে। যদিও গত কয়েক বছরে টুইটারে জনপ্রিয়তায় ভাটা দেখা দিয়েছিল; কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে এটির জনপ্রিয়তায় বেশ চাঙ্গাভাব ফিরে আসছে।

৭. আলিবাবা (Alibaba)

Alibaba
阿里办公区

আপনি কি জানেন, আলিবাবা’র প্রতিষ্টাতা জ্যাক মা ৫ ইংরেজী শিখবার জন্য ৫ বছরের জন্য একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলেন এবং সেখানেও তিনি প্রতি মাসে ১২ থেকে ১৫ ডলার উপার্জন করতেন।

আলিবাবা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: ড্যানিয়েল ঝ্যাং
  • প্রোডাক্ট: ই-কমার্স, ইন্টারনেট, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং প্রযুক্তি
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ জ্যাক মা এবং পেন লি, ৪ এপ্রিল, ১৯৯৯
  • মোট এমপ্লয়ি: ৫০,০৯২
  • হেডকোয়ার্টার: হ্যাংঝোউ, জেজিয়াং, চীন
  • বাজার মূলধন: ৪৯৬ বিলিয়ন এবং বাড়ছে
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ৮২%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ১০৮%

আলিবাবা’কে বলা হয়ে থাকে “চীনের আমাজন” – বাস্তবে এই ব্যাপ্তি তার চেয়েও বেশি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ার বাজারে ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি প্রারম্ভিক পাবলিক মূল্যমান নিয়ে আলিবাবা যাত্রা শুরু করে; যার পরিমাণ ছিল ২১.৮ বিলিয়ন ডলার। আলিবাবা’র প্রতিষ্টাতা জ্যাক মা পৃথিবীর অন্যতম সম্পদশালী ব্যক্তিদের একজন এবং চীনের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম।

৮. নেটফ্লিক্স (Netflix)

Netflix

নেটফ্লিক্স এর একটি মজার তথ্য হল, এখানে কল সেন্টারের মত কর্মক্ষেত্রে একজন ব্যক্তিও ঘণ্টাপ্রতি সর্বনিম্ন ১৮ ডলার বেতন পেয়ে থাকেন।

নেটফ্লিস্ক সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: রিড হ্যাস্টিং
  • প্রোডাক্ট: স্ট্রিমিং এন্টারটেইনমেন্ট/প্রোডাকশন
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ রিড হ্যাস্টিং এবং মার্ক র‍্যান্ডলফ, আগস্ট ২৯, ১৯৯৭
  • মোট এমপ্লয়ি: ৫,৪০০
  • হেডকোয়ার্টার: লস গ্যাটোস, ক্যালিফরনিয়া, যুক্তরাষ্ট্র
  • বাজার মূলধন: ১২৪.১ বিলিয়ন ডলার
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ১০৪%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ৬২৫৯%

শুরুতে গ্রাহকদের কাছে ডিভিডি-মেইল-সার্ভিস প্রদানের সেবা দিয়ে আরম্ভ করে নেটফ্লিক্স; যা ধীরে ধীরে পুরো পৃথিবীর ফিল্ম এবং টিভিভিত্তিক অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিস পরিসেবার অপ্রতিদ্বন্দ্বী কোম্পানীতে পরিণত হয়। মানুষের এন্টারটেইনমেন্ট পরিসেবার ধারণাকেই পরিবর্তন করে দিয়েছে নেটফ্লিক্স। অবস্থা এখন এমন হয়েছে যে, সবচেয়ে জনপ্রিয় সিনেমা এবং টেলিভিশন শোগুলো নেটফ্লিক্স প্লাটফর্মের উপযোগী করে বানানো ও সেখান থেকেই প্রদর্শন করা হচ্ছে।

৯. পেপ্যাল (Paypal)

Paypal

মজার বিষয় হল, ১৯৯৯ সালে প্রথম ১০টি জঘন্য বিজনেস আইডিয়ার লিস্টে স্থান লাভ করেছিল এই পেপ্যাল কোম্পানীটি।

পেপ্যাল সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: ড্যানিয়েল শ্যুলম্যান
  • প্রোডাক্ট: অনলাইন পেমেন্ট
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ কেন হোয়ারী, লুক নোসেক, ম্যাক্স লেভচিন, পিটার ঠিয়েল এবং ইলোন মাস্ক, ডিসেম্বর, ১৯৯৮
  • মোট এমপ্লয়ি: ১৮,১০০
  • হেডকোয়ার্টার: স্যান জোস, ক্যালিফোর্নিয়া
  • বাজার মূলধন: ৯৫.৬ বিলিয়ন
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ৮৯%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ১২৯%

আমেরিকার শেয়ার বাজারে ২০০২ সালে নিবন্ধিত হয় পেপ্যাল। যাত্রার মাত্র ৪ বছরের মধ্যে তারা এই কাজটি সেরে ফেলে। আর, কপাল কি দেখেন! বিখ্যাত ইকমার্স সাইট ই-বে (eBay) এর চোখে পড়ে যায় পেপ্যাল। সে সময় এর নাম ছিল, “কোয়েনফিনিটি”। এর পর, ২০০০ সালে ইলোন মাস্ক’র X.com কোম্পানীর সাথে অঙ্গীভূত হয়। তার পর আর পিছে ফিরে তাকাতে হয় নাই। পেপ্যাল’কে সবাই এখন এক নামে চেনে। এটি এখন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ইকমার্স সাইটের নাম। পৃথিবীব্যাপী হাজার হাজার অনলাইন পণ্যের গায়ে সগৌরবে বহন করে চলেছে পেপ্যালের লোগো।

১০. টেসলা (Tesla)

Tesla

টেসলা’কে নিয়ে চমকপ্রদ তথ্য হচ্ছে, এর প্রতিষ্টাতা, ইলোন মাস্ক (Elon Musk) যখন এই কোম্পানীটি প্রতিষ্ঠা করেন তখন এতে তার বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

টেসলা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: ইলোন মাস্ক
  • প্রোডাক্ট: গাড়ি এবং এনার্জি স্টোরেজ
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ মার্টিন এবেরহার্ড, মার্ক টারপেনিং, ইয়ান রাইট, ইলোন মাস্ক এবং স্ট্রাউবেল, জুলাই ১, ২০০৩
  • মোট এমপ্লয়ি: ৩৩,০০০
  • হেডকোয়ার্টার: পালো আল্টো, ক্যালিফোর্নিয়া
  • বাজার মূলধন: ৫৯.৫ বিলিয়ন
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ৪০%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ১৭২৮%

নতুন নতুন উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ও নবায়নযোগ্য শক্তি নিয়ে গবেষণার ক্ষেত্রে টেসলার বিশ্বব্যাপী নাম-ডাক রয়েছে। এর তৈরী বৈদ্যুতিক গাড়ি উন্নয়নশীল দেশগুলোতে বেশ সাড়া ফেলেছে। ২০০৫ ও ২০০৬ সালে টেসলার তৈরী বৈদ্যুতিক গাড়িগুলো বাজারজাত করা হয় তার মধ্যে “এস” মডেলের গাড়িগুলো সবচেয়ে বেশি বিক্রয় হয়েছে। এছাড়াও তাদের এক্স মডেলের গাড়িগুলোর চাহিদা তুঙ্গে রয়েছে। আর, টেসলার পণ্যগুলোর এই কোম্পানীর সুপার-সেলেব্রিটি সিইও ও প্রতিষ্ঠাতার মতোই বিখ্যাত।

১১. স্যামসং (Samsung)

Samsung

শুনলে অবাক হবেন যে, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় অট্টালিকা, বুর্জ খলিফা (Burj Khalifa) এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের নাম হল এই স্যামসং।

স্যামসং সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: Kwon Oh Hyun (কৌন ওহ হুয়ান)
  • প্রোডাক্ট: ইলেক্ট্রনিক থেকে শুরু করে বিবিধ পণ্য
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ লি বায়ুং-চুল, মার্চ ১, ১৯৩৮
  • মোট এমপ্লয়ি: ৪,৮৯,০০০
  • হেডকোয়ার্টার: সিউল, দক্ষিণ কোরিয়া
  • বাজার মূলধন: ২৮৫.৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ২৩%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ২৮০%

স্যামসাং বৃহত্তম দক্ষিণ কোরিয়ান ব্যবসাগোষ্ঠী এবং সর্বকালের বৃহত্তম এবং সর্বাধিক সফল প্রযুক্তি সংস্থাগুলির মধ্যে একটি। এই কোম্পানিটি একটি ট্রেডিং কোম্পানী হিসাবে শুরু হয়েছিল এবং ইলেক্ট্রনিক্স রাজ্যে প্রবেশের ৬০ বছর পর্যন্ত এটি বহু সেক্টরে কাজ করেছে। বর্তমানে এটি টেলিভিশন, স্মার্টফোন, গৃহস্থাতি যন্ত্রপাতি এবং অন্যান্য অনেক জনপ্রিয় ডিভাইসগুলির শীর্ষস্থানীয় বিশ্বব্যাপী প্রস্তুতকারীদের মধ্যে একটি।

১২. সেলসফোর্স (Salesforce)

Salesforce

সেলসফোর্স কোম্পানীটি যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম অনলাইন স্টোরের প্রচলন করেছিল; এ্যাপল এরও আগে। তারা বিশ্বখ্যাত কোম্পানি iTunes এরও ৩ বছর আগে তাদের নাম রেজিস্ট্রেশন করেছিল।

সেলসফোর্স সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: মার্ক বেনিওফ (Marc Benioff)
  • প্রোডাক্ট: ক্লাউড কম্পিউটিং
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ মার্ক বেনিওফ এবং পার্কার হারিস
  • মোট এমপ্লয়ি: ২৫,১৭৮
  • হেডকোয়ার্টার: স্যান ফ্রান্সিসকো, ক্যালিফোর্নিয়া
  • বাজার মূলধন: ৮৩ বিলিয়ন
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ৪৩%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ৭০৪%

বিশ্বের ক্লাউড কম্পিউটিং কোম্পানীগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড় কোম্পানী হল এই সেলসফোর্স। সত্যি বলতে ২০১৭ সালের প্রথমার্ধের পর থেকে ক্লাউড কম্পিউটিং কোম্পানীগুলোর মধ্যে সেলসফোর্স প্রথম কোম্পানী হিসাবে বছরপ্রতি ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার লাভ পকেটস্থ করতে সক্ষম হয়েছে। ২০০৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ার বাজারে নিবন্ধনের পর থেকেই এই কোম্পানীর চোখধাঁধানো উত্থান ঘটে। এই উত্থানের সময়ে এতে অর্থ বিনিয়োগ করেন ন্যান্সি পেলসি (Nancy Pelosi) যিনি যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভের সংখ্যালঘুদের নেতা।

১৩. লিংকডইন (LinkedIn)

Linkedin

আপনি কি জানেন, লিংকডইন এ আপনার প্রোফাইলে যদি একটি আকর্ষনীয় ছবি যুক্ত করেন, তবে আপনি আপনার প্রোফাইলটী ১১ গুণ বেশী হিট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

লিংকডইন সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: জেফ ওয়েইনার
  • প্রোডাক্ট: প্রফেশনাল সোশ্যাল নেটওয়ার্ক
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ রিড হফম্যান, এ্যালেন ব্লু, কন্সট্যান্টিন গুয়েরিক, এরিক লাই এবং জেন-লুক ভাইল্যান্ট,
  • মোট এমপ্লয়ি: ২৫,১৭৮
  • হেডকোয়ার্টার: স্যান ফ্রান্সিসকো, ক্যালিফোর্নিয়া
  • বাজার মূলধন: ৮৩ বিলিয়ন
  • বার্ষিক প্রবৃদ্ধি: ৪৩%
  • গত ১০ বছরে প্রবৃদ্ধিঃ ৭০৪%

যদি গত ১০ বছরের মধ্যে অনলাইনে চাকুরীর জন্য কোন আবেদন করে থাকেন, তবে আপনার নিশ্চয় লিংকডইন সঙ্গে পরিচয় ঘটেছে এতদিনে। এটি প্রোফেশনালদের জন্য একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্লাটফর্ম। প্রফেশনালদের জন্য এটি একটি বিনামূল্যে ব্যবহারের উপযোগী প্লাটফর্ম যেখানে ২০০ টি দেশের ৫০০ মিলিয়ন ইউজারের প্রোফাইল রয়েছে। এই প্লাটফর্মটি এমনভাবে গড়ে উঠেছে যে, এখানে একজন প্রোফেশনালের খুব পরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা প্রোফাইলের মাধ্যমে তার কাঙ্খিত চাকুরী খুঁজে নিতে পারবেন।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের আরেক সফটওয়ার জায়েন্ট, মাইক্রোসফট ২৬.৪ বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে লিংকডইন’কে অধিগ্রহন করে।

১৪. উবার (Uber)

Uber

উবার সম্পর্কে মজার তথ্য হল, এক সময় যুক্তরাষ্ট্রের অনেজ শহরে এর যাত্রীদের কাছে জীবন্ত বিড়াল আদর করার জন্য ১৫ মিনিট টাইম-স্লটের ভিত্তিতে বিক্রি করা হত।

উবার সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত তথ্য

  • প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা: দারা খোসরোশাহী
  • প্রোডাক্ট: পিয়ার-টু-পিয়ার রাইড শেয়ারিং প্লাটফর্ম
  • প্রতিষ্ঠাতাঃ ট্রাভিস কালানিক এবং গ্যারেট ক্যাম্প, মার্চ, ২০০৯
  • মোট এমপ্লয়ি: ১২,০০০
  • হেডকোয়ার্টার: স্যান ফ্রান্সিসকো, ক্যালিফোর্নিয়া
  • বাজার মূলধন: ৬৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার

উবার চালু হওয়ার ২ বছর পর্যন্ত এর নাম ছিল উবারক্যাব (UberCab) – কিন্তু বর্তমানে উবার নামটি বিশ্বের কাছে সুপরিচিত। পৃথিবী জুড়ে শহরগুলোতে উবারের পিয়ার-টু-পিয়ার রাইড শেয়ারিং সার্ভিসের উপরে নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। আর, এই সার্ভিসের সাথে যুক্ত থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষ তাদের জীবিকার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ উপার্জন করতে পারছেন। আশা করা হচ্ছে, ২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারে নিবন্ধিত হতে যাচ্ছে উবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.