বেস্ট Android Games: ২০১৯

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaটিপস ও ট্রিক্সবেস্ট Android Games: ২০১৯

Google Play Store থাকা অসংখ্য গেম এর মধ্যে কোনগুলো বেস্ট গেম, এমন একটা তালিকা গুগল এ খোঁজ করতে করতে যদি এই লেখাটা আপনার চোখের সামনে ভাসতে থাকে, তবে আপনার জন্য সুখবর যে, আপনি সঠিক ওয়েবসাইটিই খুঁজে পেয়েছেন।

যখনই নতুন কোন গেম জনপ্রিয়তা পায়, সেটি এই লিস্টের তালিকাতে যুক্ত করে রাখা হয়। এই পেজটিকে বুকমার্ক করে রাখুন আর মাঝে মাঝে চোখ রাখুন নতুন কোন গেম এই তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছে কিনা।


পাবজি মোবাইল (PUBG Mobile)

এ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ডিভাইসগুলোতে PUBG গেমের পারফরমেন্স ও সাবলীল গ্রাফিক্সের মিশেলের এই গেমকে পৃথিবীর তাবৎ গেমারদের ঘুম কেড়ে নিয়েছে। এটি একটি প্লেয়ার-ভারসেস-প্লেয়ার রাজকীয় ব্যাটল গেম (PvP battle royale game) যেখানে একটি বিশাল দ্বীপের মধ্যে প্লেয়াররা পরস্পের বিরুদ্ধে মরণপণ লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়; আর এই গেমের মধ্যে ছড়িয়ে রাখা হয়েছে ভয়ঙ্কর সব যুদ্ধাস্ত্র, গোলা-বারুদ এবং যুদ্ধযান।

এই গেমে গেমারকে solo player বা একটা Team আকারে খেলার অংশগ্রহন করতে হয় এবং খেলার মাঝে প্লেয়ার তার বেস্ট যুদ্ধাস্ত্র ব্যবহার করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়াই করে টিকে থাকতে হয়। এই খেলার উদ্দ্যেশ্য একটাইঃ “মার অথবা মর”।

পিসি বা কনসোলের জন্য বানানো জনপ্রিয় গেমের কোন রিলিজ কিছু দিন পরে সাধারণতঃ এ্যান্ড্রয়েডের জন্যও রিলিজ দেয়া হয়। গেমাররা এ্যান্ড্রয়েডে PUBG এর অসাধারণ পারফরমেন্স দেখে অবাক হয়ে যান। এ্যান্ড্রয়েডে এটিই সবচেয়ে জনপ্রিয় গেম হলেও, এই গেমে মূল্যবান লুট বক্সগুলো যেভাবে লুকিয়ে রাখা হয়, তা এক কথায় বলতে গেলে, গেমারদের জন্য জন্য নিখাঁদ হতাশার ব্যাপার। তথাপি, এই গেমটি ফ্রি এবং বিভিন্ন ডিভাইসে এই গেমটি ঝামেলা ছাড়াই চালু করা যায়।

দামী স্মার্টফোনগুলোতে এই গেমটি সর্বোচ্চ গ্রাফিক্সের অসাধারণ ডিটেইলসহ খেলা যায়, আবার, কম দামী ডিভাইসগুলোতেও গ্রাফিক্স ডিটেইল কমিয়ে গেমটি উপভোগ করা যায়। যাদের মোবাইল ডিভাইসে উন্নততর প্রসেসর ও গ্রাফিক্স চিপসেট রয়েছে, তারা নিশ্চিন্তে গেমের ম্যাক্সিমাম সেটিং দিয়ে PUBG খেলাটি উপভোগ করতে পারেন।

পিসির গেম হিসাবে মোবাইলে PUBG গেমের এ্যান্ড্রয়েড ভার্সনে রয়েছে জুড়ে দেয়া হয়েছে দারুণ কিছু এপিক মোমেন্ট। সম্প্রতি এতে যুক্ত হওয়া zombie mode নিয়েও কোম্পানীটি সাফল্যের মুখ দেখেছে এবং এটি নিয়ে একটি সিকুয়েল মোডও তৈরী হয়েছে।

তাহলে দেরী কেন? আপনার ডিভাইসে PUBG গেমটি ডাউনলোড করে খেলা শুরু করে দিনগ


ব্রল স্টারস (Brawl Stars)

এ্যান্ড্রয়েডের জন্য Brawl Stars রিলিজ হতে অনেক সময় নিয়েছে। দেরীতে হলেও এখন এটি Google Play Store থেকে ডাউনলোড করার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে। Supercell কোম্পানীর তৈরী হওয়া Brawl Stars একটি ফাস্ট মল্লযুদ্ধ খেলা যেটি Play Store এ থাকা অন্যান্য গেমের মত না।

Clash of Clans গেমের মধ্যে দিয়ে পরিচিত পাওয়া কোম্পানী Supercell কোম্পানীর আরেকটি গেম Brawl Stars কিন্তু CoC এর মত নয়; এই MOBA (Multiplayer Online Battle Arena) গেমে গেমাররা টিম তৈরী করে এই গেমে অংশগ্রহন করে খেলতে পারবেন। দারুণ বৈচিত্রমত এই গেমের সবকিছু কালারফুল এবং এর ক্যারেকটারগুলো কার্টুনের মত দেখতে হওয়ায় গেমারদের কাছে এর আবেদন বৃদ্ধি পেয়েছে।

গেমটিতে একাধিক গেম মুড রয়েছে; এই মুড আবার ঘণ্টার ঘণ্টায় পরিবর্তন হয়ে থাকে। ফলে গেমররা গেমটি লগ-ইন করে থাকা অবস্থায় এই পরিবর্তনটি দেখতে পাবেন। এই মুডগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ

  • জেম গ্র্যাব (Gem grab): এই মুডে ম্যাপের মাঝ থেকে বের হওয়া জেমগুলোকে সংগ্রহ করবেন গেমাররা। যে টিম ১৫ মিনিটে ১০ বা ততোধিক জেম সংগ্রহ করে নিজের ঝুলিতে ধরে রাখতে পারবেন সেই টিম জয়ী হবে।
  • লুটের মাল (Heist): প্রতি টিমকে অন্যের সম্পদ লুট করার পাশাপাশি নিজের মালামালের দিকে তীক্ষ্ম নজর রাখতে হবে যাতে নিজেরটা অন্য টিম এসে লুটে না নিয়ে যায়।
  • শোডাউন (Showdown): একক বা দ্বৈত প্লেয়ারদের জন্য রয়েছে Battle Royale মুড যেখানে থাকবে ১০ জন প্লেয়ারের একটি গ্রুপ
  • পুরষ্কার (Bounty): প্রত্যেক টিমের লক্ষ্য হল প্রতিপক্ষকে হত্যা করে স্টার সংগ্রহ করা। লাইফ নষ্ট না করে যত বেশী সংখ্যক হত্যা করতে পারবে নিজের মাথার মূল্যের জন্য তত বেশী সংখ্যক স্টার পাওয়া যাবে।
  • ব্রল বল (Brawl Ball): Brawl Stars সম্বলিত ফুটবল ম্যাচ। যে টিম প্রথমে ২টা গোল দিতে পারবে সে টিম জিতে যাবে।
  • রোবো রাম্বল (Robo Rumble): এই মুডটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে শেষ করতে হয়। এই সময়ের মধ্যে ৩টি টিম ৩ বারের জন্য ঝাকে ঝাকে রোবটের মুখোমুখি হবে তার মধ্যে আবার রয়েছে “বস রোবট”। এই বস রোবটগুলোর রয়েছে অনেক বেশী হিটপয়েন্ট এবং এগুলোর মার খেলে টিমের দফা রফা হয়ে যাবে।

এই গেমের প্রতিটা মুডের রয়েছে আলাদা মজা ও এগুলো নিজস্ব বৈশিষ্ট্যে বিশেষায়িত; কিন্তু, এই ৬টা মুডকে একের পর এক ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে এনে Supercell তাদের Brawl Stars গেমকে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। বলা যায়, সব দিক থেকেই এই গেমের আলাদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে আর এর সাম্প্রতিক আপডেটে মাধ্যমে গেমে আনা হয়েছে সতেজ থ্রিডি-স্টাইলের গ্রাফিক ডিজাইন যা আগের থেকে অনেক অনেক বেশি আকর্ষনীয়।

তবে, এর পুরস্কার রাখার বাক্স খোলার পদ্ধতি ও কার্ড কালেকশন নিয়ে গেমারদের মধ্যে অভিযোগ লক্ষ্য করা গেছে। কিন্তু, সান্ত্বনা এই যে, এই পুরস্কারগুলো গেমারদের পারফরমেন্স উপর নির্ভর করে; আর এগুলোর কালেশনের জন্য গেমারদেরকে ঘণ্টার পর ঘণ্টার অপেক্ষা করে থাকতে হয় না।


আরডব্লিউবিওয়াইঃ এ্যামিটি এ্যারিনা (RWBY: Amity Arena)

রুস্টার টিথ এ্যানিমেশন সিরিজ আরডব্লিউবিওয়াই (Rooster Teeth Animation series RWBY) এর উপরে ভিত্তি করে তৈরী করা গেম “আরডব্লিউবিওয়াইঃ এ্যামিটি এ্যারিনা” (RWBY: Amity Arena)। এই গেমটি বেশ ভালোভাবে ডিজাইন করা স্ট্র্যাটেজি গেম যেটি ক্ল্যাশ রয়াল (Clash Royale) এর মত একটি MOBA টাওয়ার ডিফেন্স গেম। এই গেমটি অল্প সময়ের মধ্যে গেমারদের মধ্যে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

এই গেমের মোদ্দা কথা হল, এটি একটি ২-লেনের মারামারির গেম যেখানে আপনার পরিপক্ষের টাওয়ারগুলো যত দ্রুত সম্ভব ধবংস করতে হবে। এ জন্য আপনাকে যুদ্ধ ক্ষেত্রের উপরে ট্রুপ কার্ড নামাতে হবে। এই গেমের ক্যারাকটার ও প্রাণীগুলো RWBY universe গেমের উপরে ভিত্তি করে তৈরী করা হয়েছে। এই গেমের বিশেষত্ব হল, এই গেমটি উপভোগ করার জন্য গেমারকে আগে থেকে ট্রেনিং নিয়ে শিখে-পড়ে আসতে হবে না।

এই গেমে প্রতিটি ম্যাচে মাত্র ৩ মিনিটের জন্য স্থায়ী হয়ে থাকে এবং এর বিভিন্ন গ্রুপগুলোর মধ্যে বেশ ভাল রকমের সামঞ্জস্যতা রাখা হয়েছে। এর অর্থ হল, ব্যাটলফিল্ডে আজাইরা ট্রুপ নামিয়ে দিয়ে গেম জেতার দিন শেষ; বরং গেমারের স্ট্র্যাটেজি ও সময়মত ট্রুপ নামানোর উপরে গেমের হার-জিত নির্ভর করবে। আর, গেমটিতে দুই স্টাইলে খেলা যাবেঃ যারা নিছক আনন্দের জন্য গেমটি খেলবেন এবং যারা গ্লোবাল র‍্যাংকিংকে গুরুত্ব দিয়ে নিজস্ব র‍্যাংক বাড়ানোর জন্য রাংকড ম্যাচ (ranked match) গুলোতে অংশগ্রহন করবেন।

এটি একটি ফ্রি গেম। যারা অবসরে বাড়তি আনন্দের জন্য গেমটি খেলতে চান তারা নিশ্চিন্তে ডাউনলোড করতে পারেন।


হোলডাউন (Holedown)

ফান-পাজল গেম (fun puzzle game) কোম্পানীগুলো তাদের গেমে পাওয়ার-আপ টুল, এক্সট্রা লাইফ বা এমন কিছু দিয়ে গেমারদের পকেট থেকে টাকা-কড়ি বের করে নেয়ার ধান্দাতে থাকে সব সময়। কিন্তু, এদিক থেকে ২০১৮ সালে Holedown গেমটি কিন্তু এই ধরণের গেমগুলো থেকে একেবারে আলাদা।

ক্ল্যাসিক বাউন্সিং বল গেমের মত Holedown এ গেমারকে বল বাউন্স করার ক্ষেত্রে অনেক স্ট্র্যাটেজিক হতে হবে – এর মাধ্যমে গেমার বিভিন্ন মহাজাগতিক ব্লককে ধবংশকে করে তাদের ভেদ করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে সূর্যের দিকে। প্রতিটি ব্লকের গায়ে একটি নাম্বার লিখা রয়েছে যেটি এর হিট পয়েন্ট নির্দেশ করে। প্রতিটা ব্লককে হিট করে ধবংস করে গেমারদেরকে তাদের পথ করে নিয়ে পরে লেভেলে উন্নীত হতে হবে।

Holedown সহজে বোঝা যায় এমন একটি পিক-এ্যান্ড-প্লে ঘরানার গেম হলেও খেলার শুরু করার পর গেমাররা বুঝে উঠেন যে, এটি খেলতে স্ট্র্যাটেজি ও স্কিলের সমন্বয় ঘটাতে হয়। এর প্রতিটি ব্রিকের ধারগুলো মসৃন হওয়ার অত্যন্ত দক্ষতার সাথে শটগুলো মারতে হবে যাতে এক শটে অনেকগুলো ব্রিক ভেঙ্গে ফেলা যেতে পারে। এই ব্যাপারটি খুব গুরুত্বপূর্ণ কারণ প্রতিটি শটের পরে স্ক্রিন এক ঘর করে উপরের দিকে উঠে যায়। আর, ব্রিকগুলো স্ক্রিনের একেবারের উঠে গেলে গেম ওভার হয়ে যাবে।

খেলার মাঝে গেমারদের সংগ্রহ করা ক্রিস্টাল দিয়ে নিজেদেরকে আপগ্রেড করতে হবে – যাতে করে একেক শটে আরও বেশি করে বল ছুটে বের হবে এবং প্রতি রাউন্ডে আরও বেশি শট পাওয়া যাবে। এক লেভেলের পর পরবর্তী লেভেলগুলো আরও চ্যালেঞ্জ নিয়ে হাজির হয় এজন্য আপগ্রেড করা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, যত উঁচু লেভেলে উঠা যাবে ততই খেলার সাবওয়েতে অভাবনীয় মনোযোগ নষ্টকারী ট্রাফিকের সম্মুখীন হতে হয়।

যাহোক, একবার গেম শুরু করার পর গেমাররা বুঝে যান কিভাবে গেমে কিভাবে নিজের স্ট্যাটকে বাড়িয়ে নিতে হয়। কারণ ঐ একটাই! Holedown গেমে এমন এক এ্যাডিকশন আছে – একবার শুরু করলে আর ছাড়তে ইচ্ছা করে না।

যারা বিজ্ঞান-ভিত্তিক পাজল গেম পছন্দ করেন এবং নতুন ধরণের গেম খেলতে পছন্দ করেন, Holedown গেমটি তাদের জন্য। এটি খেলার সময় মনে হবে, “আহা! পকেটের প্রতিটি পয়সা উসুল!!”


ইভোল্যান্ড ২ (Evoland 2)

এ্যান্ড্রয়েডের একটি প্রিমিয়াম গেমগুলোর মধ্যে একটি হল ইভোল্যান্ড ২ (Evoland 2)। এটি এমন একটি গেম যা একবার শুরু করলে আর ছাড়তে ইচ্ছা করে না। Steam প্ল্যাটফর্মের জন্য প্রথম রিলিজ দেয়া হয়েছিল ২০১৫ সালে। Evoland এর চমৎকার উত্তরসূরী বা সিকুয়েল হিসাবে Evoland 2 প্লে স্টোরের আসে। দ্বিতীয় ভার্সনের বৈশিষ্ট্যের মধ্যে রয়েছে এর দারুণ গ্রাফিক্স, এর গেম প্ল্যান এবং এর প্রতিটি পর্ব একেকটি স্বতন্ত্র গল্পের মত। তাই এই গেম খেলতে কোন ক্লান্তি আসে না – পরের পর্বের জন্য অপেক্ষা করতে ভাল লাগে।

বলে রাখা ভাল, Evoland 2 এর সবগুলোর পর্বে গেম প্লে’তে গেমারদের আনুমানিক ২০ ঘণ্টার মত সময় পার হয়ে যাবে। আর, এই সময়কাল আগের পর্বের গেম প্লে থেকে তুলনামূলকভাবে বেশিই বলা চলে।

যদিও এর প্রথম সিরিজের গেমটি RPG (Role Playing Game) টাইপের হলেও Evoland 2 তে গেমটির পূর্বসূরীর নস্টালজিক ভাবধারাটা ধরে রাখার পাশাপাশি এতে অন্য এক ধরণের গেমের আবেশ পাওয়া যাবে। খেলা শুরু করলে প্রথমে RPG স্বাদ পাওয়া যায়, কিন্তু যতই গেমের পরবর্তী লেভেলগুলোতে যাওয়া যাবে এর চমৎকার গ্রাফিক্স আর স্টোরি গেমারদেরকে ড্রামাটিক একটা ভাবের ছোয়া দিবে – এ কারণে গেমাররা পরবর্তী লেভেলে উঠে আরও এনার্জি নিয়ে গেমে সর্ব শক্তি দিয়ে ঝাপিয়ে পরতে পারেন।

Evoland 2 গেমারদের একটি আদর্শ মোবাইল গেম এবং এর জন্য গেমাররা যে অর্থ ব্যয় করবেন তা সার্থক হবে, বলা যায়।


ক্যামেলিওন রান (Chameleon Run)

Noodlecake Games এর ঘর থেকে বের হওয়া আরেকটি Chameleon Run গেমটি একটি অটো-রানার গেম যেটি গেমারদের রিয়্যাকশন টাইমের ব্রেইন-আউট পরীক্ষা নিয়ে নেয়।

এই গেমে আপনাকে বিভিন্ন রঙের প্লাটফরমের মাঝ দিয়ে দ্রুততার সাথে জাম্প করে ও পাশ কাটিয়ে যেতে হবে। গেমারকে জাম্প করা ও রঙ পরিবর্তন করার স্কিল দেয়া হবে। প্রতিটা কোর্সের মধ্যে দিয়ে যাবার সময় আপনা রঙের সাথে মিলিয়ে বিভিন্ন অবজেক্টকে ছুয়ে দিতে হবে যার রঙ আপনার রঙের সাথে মিলে যাবে। কি সহজ মনে হচ্ছে? আরেকবার চিন্তা করে দেখেন!

ভালো হার্ডওয়ার পিসিতে ফুল ফ্রেম রেটে এই গেমটি খেলার সময় গেমটির অপরূপ মনে হয়; আর এর টু-টাচ কন্ট্রোলের ইনপুট ব্যবস্থার (two-touch control) কারণে এর মজাটা আরও মজাদার মনে হয়। খেলতে খেলতে গেমার কোন কালার সুইচ ছুয়ে দিলে তাৎক্ষণিক ড্যাশ বুস্ট পেয়ে যাবে। গেমের জাম্প কন্ট্রোলগুলো খুব ভালভাবে কাজ করে এবং ডাবল জাম্পের ট্রিকি শটগুলো খেলতে খেলতে শিখে নেয়া যায়।

গেমের প্রতিটা লেভেল শুরু করে গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্য একাধিক পথ বেছে নেয়া যায়। প্রতিটা লেভেলে ৩টি করে কাজ সম্পন্ন করতে হয়। প্রতিটা লেভেলের আকর্ষণের কারণে আপনি বার বার এর কাছে ফিরে আসবেন।

ছোট করে বলতে গেলে গেমটি ছোট সাইজের হলেও এর অন্তঃশীলা ডিজাইন-বৈশিষ্ট্যের কারণে এটি একটি আদর্শ স্পীডরানিং গেমে পরিণত করেছে – যদি এই ঘরানার আরও গেম রয়েছে যা Chameleon Run গেমকে চ্যালেঞ্জ করতে পারে।

সার্বিক বিবেচনায় বলা যায়, ২ ডলারের এই গেমটিকে গেমরা লুফে নিবেন।


দি রুমঃ ওল্ড সিনস (The Room: Old Sins)

পুরনো পাজল গেমগুলোর মধ্যে Fireproof Games এর তৈরীকৃত The Room: Old Sins গেমটি সবচেয়ে বড় ও বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত গেম। এটি “The Room” পাজল গেম সিরিজের ৪র্থ পুরস্কার-প্রাপ্ত গেম। এই গেমে আপনাকে একজন উচ্চাভিলাষী প্রকৌশলীর বাড়িতে অভিযান চালাতে হবে যাকে বেশ কিছু ধরে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তাকে খঁজতে গিয়ে আপনি খুঁজে পাবে একটি পুরনো অদ্ভূত ডলহাউজ।

গেমে আপনার হাতে চোখে একটি উন্নতমানের অতীন্দ্রিয় চশমা দেয়া হবে যার সাহায্যে আপনি বিভিন্ন রুমের ভিতরে অভিযান চালানোর সময় অদেখা অদ্ভূত ধরণের পাজল বাক্স এবং ফাঁদ দেখতে পাবেন। গেমটি সব অদ্ভূদ কিসিমের কারবার হতে থাকবে এবং আপনি যদি এর পাজলগুলোর সমাধান বের করতে পারেন তবে নিখোঁজ ঐ প্রকৌশলীর ভাগ্যে কি হয়েছে তার একটি সুরাহা বের করতে সমর্থ হবেন।

ইতোপূর্বে আপনি যদি “The Room” সিরিজের গেমগুলো খেলার সৌভাগ্য হয়ে থাকে, তাহলে মোবাইলে এই গেমটি খেলতে গিয়ে আপনি আবারও নিজেকে বিমোহিত অবস্থায় আবিষ্কার করবেন। গেমটি গ্রাফিক্স ও অডিও এক কথায় চমৎকার। সব মিলিয়ে গেমটি আপনাকে একটি চমৎকার ও ভৌতিক আবহের মধ্য ফেলে দিবে যে গেমটি খেলার সময় আপনাকে অত্যন্ত সতর্ক অবস্থায় গেমটি বিভিন্ন জিনিষ স্পর্শ করতে হবে এবং এর মধ্যে থাকে বিভিন্ন রহস্যের সমাধান করতে হবে।


ডিসেম্বলার (Dissembler)

চমৎকার রঙ্গীন ও ভিন্ন আবহের একটি গেম, ডিসেম্বলার। প্রথম দেখায় এই গেমটিকে অন্যান্য গেমগুলোর মত টাইল আদল-বদল (tile-swapping) করে মিলানো গেমের মত মনে হয়। কিন্ত, পাজল গেম হিসাবে এটি বেশ অন্য রকম এবং এ কারণে গেমাররা এটিকে আলাদা র‍্যাংকিং করেছেন এবং এই ঘরানার অন্যান্য গেমগুলো থেকে বৈশিষ্ট্যের দিক থেকে অন্য উচ্চতায় উন্নীত করেছে। এই কারণে গেমটি খেলার সময় কোন টেনশন বোধ হয় না।

শুরুর দিকে এই গেমটির খেলার নিময়কানুনুগুলো সহজভাবে শুরু হয় এবং একেকটি লেভেল পার হলে এর পাজলগুলোর আরও জটিল হতে থাকে। এর ভিডিওটি দেখলে ব্যাপারটি বুঝতে পারবেন।

গেমটিতে ১২০টি লেভেলের পাজল রয়েছে এবং নাই কোন টাইম লিমিট। এর ভাল দিক হল, এটি এ্যাডমুক্ত এবং নাই ইন-এ্যাপে কিনার মত কোন এ্যাড-অন। এ কারণে এই গেমটিকে প্রিয় গেমের লিস্টে রাখতেই হচ্ছে।


জাজ (JYDGE)

জাজ (JYDGE) একটি দূর্দান্ত ও দূর্ধর্ষ টুইন-স্টিক স্যুটার গেম। এই গেমে আপনাকে একজন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অফিসার যিনি তার অস্ত্র দিয়ে রোবোকপ-স্টাইলে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেন।

ভিন্ন ভিন্ন চ্যালেঞ্জ পারি দিয়ে এই গেমের প্রতিটা লেভেল পাড়ি দিতে দিবেন, কিন্তু লেভেলগুলো কখনও আপনার কাছে বিরক্তিকর মনে হবে না। গেমের মাঝে আপনি অবৈধ অর্থ আটক করবেন এবং এগুলো দিয়ে JYDGE কে আপগ্রেড করবেন – সাথে সাথে এর গ্যাভেল বা মারনাস্ত্রকেও আপগ্রেড করবেন – আপগ্রেড করার সময় আপনার প্রয়োজনীয় ও সঠিক এক্সেসরিজও বেছে নিতে ভুলবেন না।

এর মাধ্যমে জাজ তার পূর্বসূরী Neon Chrome এর শক্তিকে ধরে রাখতে পারবে এবং আপনাকে আপগ্রেডেড অস্ত্র দিয়ে তার স্টাইলে এগিয়ে যেতে উৎসাহ দিবে। এভাবে আপনি গেমের বাকি লেভেলগুলো পাড়ি দিবেন।

এই গেমে রয়েছে এমন আকর্ষণ যা বাড়ে বাড়ে খেললেও বিরক্তিকর মনে হবে না। আপনি যদি এমন একটি গেমের খোজে থাকেন যা আপনাকে দিতে পারে দারুণভাবে সাজানো গেমিং স্ট্রাটেজি এবং এর সাথে আকর্ষণীয় সাউন্ডট্র‍্যাকের কার্যকরী সংমিশ্রন – তবে JYDGE গেমটি শতভাগ আপনার জন্য।


টেসলা বনাম লাভক্রাফট (Tesla vs Lovecraft)

ফিনল্যান্ডের ডেভেলপারদের ফার্ম 10tons Ltd চিন্তাপণ্য হিসাবে বাজারে এসেছে Tesla vs Lovecraft গেমটি এবং এটি একটি সত্যিকারের ভাল গেম। গেমটিতে নিকোলা টেসলা ও তার অত্যাধুনিক অস্ত্র নিয়ে মারদাঙ্গা ভূমিকায় দেখা যাবে H.P. Lovecraft এর মুক্ত করে দেয়া অসংখ্য দানবের বিপক্ষে লড়াইয়ে। আপনাকে টেসলার ভূমিকায় নামতে হবে এবং দ্রুত দানবদের বিরুদ্ধে লড়াই করে বিজিত হতে হবে।

সত্যি বলতে কি, এ্যাকশন এবং শুটিং এর জন্য টুইন-স্টিক কন্ট্রোলওয়ালা এমন পলিশড গেম খুঁজে পাওয়া দূষ্কর। লেভেল আপের সাথে পাল্লা দিয়ে ডিফিকাল্টি লেভেলও বাড়তে থাকে। তখন এক সাথে ২০০ শত্রু স্ক্রিনে ভোজবাজির মত উদয় হবে; আর আপনার শুটিং স্পীড খুব দ্রুত না হলে লড়াইয়ে টিকে থাকা দুষ্কর হবে।

কিন্তু, স্বস্তির ব্যাপার হল গেমটিতে প্রচুর পরিমাণে পাওয়ার-আপ এবং বোনাসের ব্যবস্থা রয়েছে। যত শত্রু পিটিয়ে ঘায়েল করবেন, ততই আপনার XP বাড়তে থাকবে – আর লেভেল আপ করার সাথে সাথে যুক্ত হবে বোনাস। খেলার মাঝে মাঝে ম্যাপের উপরে পাওয়ার-আপ ও অস্ত্র ভেসে উঠবে। ছয় পিসের একটা কম্বিনেশন রয়েছে যেটি সংগ্রহ করলে টেসলার একটি “মেক” (mech) বানাতে দিবে যা দিয়ে যে কোন বাঁধাকে আপনি কম সময়ের মধ্যে ছুবি দিয়ে মাখন কাটার মত করে কেটে বের হয়ে যেতে পারবেন।

গেমটির কন্ট্রোলগুলো ব্যবহার করে গেমররা সন্তোষ প্রকাশ না করে পারবেন না এবং এতে ব্লুটুথ কন্ট্রোলও যুক্ত করা যায় যা হার্ডকোর গেমারদেরকে দিবে গেম কন্ট্রোলের বাড়তি সন্তুষ্টি। মূল গেমের মধ্যে অনেক ধরনের কন্টেন্ট রয়েছে, উপরন্তু বিভিন্ন ধরণের মন্সটার, মারণাস্ত্র এবং আরও বাড়তি ফিচার ডাউনলোড করে নেয়া যাবে।

তবে, এই ধরণের বাড়তি কন্টেন্টের জন্য বাড়তি ডলার পকেট থেকে খরচ না করলেও Tesla vs Lovecraft ‘র মূল গেমের সাথে যা দেয়া আছে তা পেয়ে গেমররা তৃপ্তিএর ঢেকুর দিতে পারেন।


HQ Trivia

HQ Trivia

রিলিজ হওয়ার পর জোড়ালও ক্রেজ সৃষ্টি করেছে এই HQ Trivia গেমটি। এ্যাপটি ওপেন হওয়ার পরে আপনাকে ১২টি ছোট ছোট প্রশ্নের উত্তর দিতে হয় – সঠিক উত্তরের জন্য আপনি মোট পুরস্কারের কিছু অংশ দেয়া হবে।

গেমটি এখনও চলছে; সাথে রয়েছে বিশেষ ট্রাইভিয়া ইভেন্ট দেয়া হয় – তার মধ্যে একেবারে সম্পূর্ণ নতুন গেম, HQ Words। HQ Words এ আপনার উচ্চারণ দক্ষতার পরীক্ষা। এখানে একটি বাক্যাংশ থাকে যার প্রত্যেকটি বর্ণ আলাদা আলাদা ভাবে উচ্চারণ করবেন।

গেমটি একের পর এক ক্রু বা হোস্ট এসে একটির পর একটি প্রশ্ন ছুড়ে দিবে – মাঝে মাঝে হোস্টরা অবশ্য হাস্যরসাত্মক ব্যাঙ্গাত্মক মন্তব্য ছুড়ে দিবে আপনার দিকে। ২০১৭ সালে রিলিজের পর থেকে এই গেমটিকে ক্রমাগত উন্নত করে আপডেট দেয়া হচ্ছে – নতুন নতুন ফিচার যুক্ত করা হচ্ছে যাতে করে আপনি বন্ধুদের সাথেও একযোগে উপভোগ করতে পারেন।

গেমটি স্টোর থেকে এক্সট্রা সুবিধা কিনবার in-app কেনাকাটার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। প্রতি সপ্তাহে এই গেমটির মিলিয়ন ব্যবহারকারী উপভোগ করে চলেছেন। যাদের ভাগ্য সুপ্রশন্ন তারা কেউ কেউ কিছু ডলারও পুরস্কার হিসাবে পেয়ে যাচ্ছেন।

প্রিয় পাঠক, আপনারা ঠিক শুনেছেন! এই গেম খেলে সত্যিকারের ডলার ইনকাম করা যায় যা পেপাল (PayPal) এ্যাকাউন্টে জমা হয়। যদি ২ ডলার আয় করেন সেটা মোড়ের দোকানে গিয়ে ১ কাপ কফি কিনে খেতে পারবেন। 🙂


Stranger Things: The Game


রেইনসঃ হার ম্যাজেস্টি (Reigns: Her Majesty)

২০১৬ সালে সালের সেরা গেম মনোনীত হয়েছেইল Reigns গেমটি এবং Google Play Indie Games contest এর সেরা গেমের খেতাবটিও তার ঝুলিতে ঢুকে পড়ে। সুতরাং, এ কথা বলাই বাহুল্য যে Reigns: Her Majesty গেমটি মূলতঃ আগের গেমটির একটি সিকুয়েল – তার গেমটির একবার না খেললে কি চলে!

“রেইনস” গেমটিতে আপনি একটি রাজ্যের সর্বেসর্বার ভূমিকায় দেখা যাবে। আপনাকে রাজ্যের সব সিদ্ধান্ত নিয়ে হবে। আপনার সিদ্ধান্তের উপরে রাজ্যের ৪টি বিষয়ের ভাগ্য নির্ভর করবেঃ উপাসনালয়, জনগণ, সেনাবাহিনী এবং রাজ কোষাগারের। আপনার দায়িত্ব হবে এর ৪টি বিষয়ের মধ্যে সমতা বজায় রাখা – এই ৪টি মধ্যে কোনটি যদি এককভাবে মিটারের সর্বোচ্চ শিখার পৌঁছে যায় বা একেবারে শুণ্য চলে যায় – তবে আপনার রাজ্য ধবসে পড়বে! আবার নতুন করে রাজ্য গড়ার কাজ শুরু করবেন।

সিকুয়েল গেমটি এর পূর্বসূরীর মতই – পার্থক্য একটাই – রাজার পরিবর্তে এবার আপনাকে রাণীর ভূমিকায় দেখা যাবে। খেলায় নিয়ে আসা হয়েছে নতুন নতুন সব চরিত্র, আর এর কাহিনীতেও আনা হয়েছে নজরকাড়া পরিবর্তন – কাহিনীতে বিভিন্ন বাঁকে রয়েছে রহস্য।

গেমটি কন্ট্রোল খুব সহজ – বিভিন্ন কার্ডগুলোরতে প্রয়োজনমত ডানে বা বায়ে নিন। গেমটি খেলার সময় দেয়া হবে প্রচুর পরিমাণ ইস্টার এগ (easter egg) যা খেলাকে করবে সহজ ও সাবলীল।

পাঠক ও ভবিষ্য গেমারদের উদ্দ্যেশে গেমের সব গোমর এখনই ফাঁস করে দিতে চাই না। শুধু বলতে চাই যে, যারা সিকুয়েলের আগের গেমটি খেলেছেন, ভাবছেন এটিও আগের মত কিনা – তাদের উদ্দ্যেশ্যে বলতে চাই, রেইনসঃ হার ম্যাজেস্টি গেমটি নতুন নতুন মেকানিজম নিয়ে আসা হয়েছে যেগুলোর এই গেমটি এ বছরের সালের Google Play’র বেস্ট গেম হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে।


পড়ার মত আরও আছে

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.