প্রাকৃতিক উপায়ে ঘরে বসেই চুল স্মুথনিং করুন

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaসাজসজ্জাপ্রাকৃতিক উপায়ে ঘরে বসেই চুল স্মুথনিং করুন

অনেকে পার্লারে গিয়ে টাকা খরচ করে চুল স্মুথনিং করে থাকেন। এতে যেমন টাকা খরচ হয়, তেমনি ক্ষতিকর রাসায়নিক ব্যবহারে চুল হয়ে যায় রুক্ষ। এ ছাড়াও মাত্রাতিরিক্ত চুল ঝরা, চুলের আগা ফেটে যাওয়ার মতো একাধিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহারের মাধ্যমে চুলের কোনও ক্ষতি না করেই পেতে পারেন স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ও সোজা সুন্দর চুল।

তবে এই পদ্ধতিতে একটু ধৈর্য ধরতে হবে আপনাকে। টানা কয়েক সপ্তাহ ঘরোয়া মিশ্রণ কাজে লাগালে ফলাফল পাবেন হাতেনাতে। এবার ঘরোয়া মিশ্রণের জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানগুলি কী কী তা জেনে নিন…

মিশ্রণের জন্য যা যা লাগবে

২ চামচ কর্ণফ্লাওয়ার, ২ চামচ লেবুর রস, ১০০ মিলিলিটার পানি, ৬ চামচ অ্যালোভেরা জেল, ২ কাপ নারিকেল কোড়ানো ও ২ চামচ ক্যাস্টর অয়েল।

বানানোর পদ্ধতি

  • ২ কাপ কোড়ানো নারিকেল, ১০০ মিলিলিটার পানি এবং ৬ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ভাল করে মিশিয়ে নিন। বেশ ঘন একটা পেস্ট তৈরি করে পাতলা কাপড়ে মিশ্রণটা বেঁধে একটি পাত্রের উপর রেখে নিংড়ে নিন। এভাবে অ্যালোভেরা জেল মেশানো নারকেলের দুধ পেয়ে যাবেন।
  • অন্য একটি পাত্রে ২ টেবিল চামচ লেবুর রস, ২ টেবিল চামচ কর্ণফ্লাওয়ার আর ১ টেবিল চামচ ক্যাস্টর অয়েল ভাল করে মিশিয়ে করে নিন।
  • এবার সামান্য আঁচে কোনও ননস্টিক পাত্রে নারিকেলের দুধ আর পরে বানানো কর্ণফ্লাওয়ার, লেবুর রস আর ক্যাস্টর অয়েলের মিশ্রণটি ঢেলে ভাল করে নাড়তে থাকুন।
  • মিশ্রণটি ঘন হয়ে এলে আঁচ থেকে নামিয়ে অন্তত আধা ঘণ্টা ঠাণ্ডা হওয়ার জন্য রেখে দিন।

ব্যবহার পদ্ধতি

  • এবার পুরো মাথার চুলকে কয়েক ভাগে ভাগ করে চুলের গোঁড়া থেকে মাথায় ভাল করে মিশ্রণটি মেখে নিন। এভাবে ঘণ্টা দেড়েক রেখে দিন। কারণ, মিশ্রণটি যত সময় রাখতে পারবেন, তত ভাল ফল পাবেন।
  • এই অবস্থায় চুল ভুলেও বাঁধবেন না। চিরুনি দিয়ে সোজা করে আঁচড়ে নিয়ে বসে থাকুন।
  • ঘণ্টা দেড়েক পর আপনার নিয়মিত ব্যবহারের শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।
  • ড্রায়ারে নয়, প্রয়োজনে ফ্যান চালিয়ে বা পারলে স্বাভাবিকভাবে চুল শুকিয়ে আঁচড়ে নিন।

ব্যস, আপনার ঢেউ খেলানো বা কোঁকড়ানো চুলগুলো অনেকটাই সোজা হয়ে গিয়েছে। এরই সঙ্গে হয়ে গিয়েছে সুন্দর ঝলমলে।

ভাল ফলাফল পেতে প্রতি সপ্তাহে এই ‘হেয়ার প্যাক’ অন্তত একবার ব্যবহার করুন। যাদের চুল কোঁকড়ানো, তাদের একটু বেশি সময় লাগবে স্বাভাবিকভাবে চুল স্মুথনিং-এর জন্য। সেই সঙ্গে চুলের স্বাস্থ্য আর স্টাইলিং একসঙ্গে পেতে শুধু একটু ধৈর্য ধরতে হবে। কিন্তু খরচ হবে নামমাত্র।

সূত্র: জি নিউজ

ক্যাটাগরিঃ সাজসজ্জা
ট্যাগঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.