হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করুন বাসাতে (WHO formula)

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaটিপস ও ট্রিক্সহ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করুন বাসাতে (WHO formula)
Advertisements

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ ভাইরাস প্রাণঘাতী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। এই মহামারী থেকে আত্মরক্ষার জন্য প্রথম কর্তব্য হলো ছোঁয়াচে এই ভাইরাসটি থেকে বেঁচে থাকা। তার জন্য জনসমাগম এড়িয়ে চলার পাশাপাশি নিত্য-ব্যবহার্য জিনিস পত্র জার্ম মুক্ত বা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার পাশাপাশি বারবার সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার রাখা।

কিন্তু আপনি যদি জরুরী প্রয়োজনে বাইরে যাওয়ার পর কেনাকাটা বা অন্যরাও ব্যবহার করছে এমন কিছু স্পর্শ করার পর সাথে সাথে হাত ধোয়ার প্রয়োজন হলেও তা সম্ভব হয়ে ওঠে না।এই সমস্যার সমাধানে ব্যবহার করতে পারেন হ্যান্ড স্যানিটাইজার।কিন্তু এই মুহূর্তে বাজারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার সহজলভ্য নয়; কিংবা দাম স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি।

এ অবস্থায় আপনি আপনার বাড়িতেই তৈরি করে নিতে পারেন হ্যান্ডি স্যানিটাইজার।

হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরীতে যা যা লাগবে:

১।এ্যালোভ্যারা
২।ইথাইল এলকোহল (স্পিরিট)বা আইসোপ্রোপাইল এলকোহল
৩।ভিটামিন ই ক্যাপসুল

হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরির দুটো মূল উপাদান হলো মিথাইল এলকোহল (স্পিরিট) ও এ্যালোভ্যারা জেল। Centers for Disease Control and Prevention (CDC)-এর সাজেশন অনুসারে এই মিশ্রনে স্পিরিটের অনুপাত হবে কমপক্ষে ৬০%। ইথাইল এলকোহল (স্পিরিট) ফার্মেসীতে পাওয়া যায়। এর বিকল্প হিসেবে ডেটল লিকুইডও ব্যবহার করা যায়। তবে ডেটলের চেয়ে স্পিরিট বেশি কার্যকর।

মিথাইল এলকোহল জীবানু নষ্ট করে। তবে শুধু স্পিরিট দিয়ে হাত পরিষ্কার করলে হাত শুষ্ক-খসখসে হয়ে যায়। তাই এর সাথে এ্যালোভ্যারা জেল মিশালে তা ত্বককে মসৃন ও সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। ভিটামিন-ই ক্যাপ এ্যালোভ্যারা জেলটাকে ভাল রাখতে প্রিজারভেটিভ হিসেবে কাজ করে। তা না হলে কয়েকদিন পর জেলটা নষ্ট হয়ে যায় এবং একটা বিশ্রি গন্ধ বের হয়।

হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রণালী

৪০০এমএল হ্যান্ড স্যানিটাইজারের জন্য একটি আস্ত এ্যালোভেরা ডগা লাগবে। ডগাটি প্রথমে ভাল করে ধুইে এর উপরের ত্বক চাকু দিয়ে তুলে নিন। এরপর একটি কাঁটা চামচ দিয়ে জেলটাকে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে নরম করে নিন।

এরপর একটা চামচ দিয়ে জেলটাকে একটা পরিষ্কার পাত্রে তুলে নিন। এরপর এটিকে হাত দিয়ে ভাল করে ম্যাস্ট (mast) করে নিন, যাতে এটি জমাটবদ্ধ না থাকে।

এরপর এর সাথে ৪০০ mg’ র চারটি ভিটামিন-ই ক্যাপুসুলের ভিতরে থাকা জেল মিশিয়ে নিন।

এখন এর সাথে স্পিরিট মিশিয়ে নিন, যাতে ৪০০ ml এর পাত্রটি পূর্ণ হয়ে যায়।

কাঁটা চামচ দিয়ে কিছুক্ষণ জমাট হয়ে থাকা জেলটা নেড়ে নিন।

এরপর ১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। তাহলে এ দু’টোর বিক্রিয়ায় একটি তরলে পরিণত হবে এবং জমাটবদ্ধ থাকবে না।

এভাবেই তৈরি হয়ে গেলো আপনার জন্য সবচেয়ে নিরাপদ ও সবচেয়ে উৎকৃষ্ট হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

এখন এটি একটি স্প্রে বোতলে ভরে ব্যবহার করুন নিশ্চিন্তে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (World Health Organization) এর পক্ষ থেকে বাড়িতে বসে কি ভাবে কার্যকরী হ্যান্ড স্যানিটারিজার তৈরী করবেন, সে ব্যাপারে একটি অফিসিয়াল PDF ডকুমেন্ট প্রকাশ করেছে।

এর আলোকে YouTube এ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেখানো পদ্ধতিতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানানোর প্রক্রিয়ার ভিডিও রয়েছে। তার মধ্যে নীচের দেখানো পদ্ধতিটিতে কম সময় হ্যান্ড স্যানিটারজার তৈরী করা যায়।

ক্যাটাগরিঃ টিপস ও ট্রিক্স

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.