কিভাবে উইন্ডোজ কম্পিউটারে এন্ড্রোয়েড অ্যাপ ও গেম চালানো যাবে

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaটিপস ও ট্রিক্সকিভাবে উইন্ডোজ কম্পিউটারে এন্ড্রোয়েড অ্যাপ ও গেম চালানো যাবে

উইন্ডোজ ১১ এর স্টেবল ভার্সন উন্মোক্ত হয়েছে সারা বিশ্বে যা উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটারে সফটওয়্যার আপডেট হিসেবে পৌঁছে গিয়েছে ইতিমধ্যে। এই আপডেটে ভিজুয়্যাল পরিবর্তন ছাড়াও যুক্ত হয়েছে একগুচ্ছ নতুন ফিচার। তার মধ্যে অন্যতম উইন্ডোজ ১১ কম্পিউটারে এন্ড্রোয়েড অ্যাপ চালানোর সুবিধা।

এর ফলে উইন্ডোজ কম্পিউটারে যে কোনও গেম ডাউনলোড করে কি-বোর্ড ও মাউসের মাধ্যমে তা খেলা যাবে। তবে এই ফিচারের জন্যে উইন্ডোজ ১১ অপারেটিং সিস্টেম থাকা বাধ্যতামূলক নয়।

উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটার ব্যবহার করেও যে কোনও এন্ড্রোয়েড অ্যাপ ও গেম চালানো সম্ভব। কিন্তু আপনি কি কখনও ভেবে দেখেছেন যে এই গেমগুলি কিভাবে আপনার উইন্ডোজ ১০ ল্যাপটপ বা পিসিতে খেলা যেতে পারে? আশ্চর্যজনকভাবে এমন কিছু উপায় রয়েছে যা আপনি উইন্ডোজ ১০পিসি বা ল্যাপটপে আপনার অ্যান্ড্রয়েড গেমগুলি চালাতে পারেন।

কিন্তু উইন্ডোজ ১১ কম্পিউটারে এই ফিচার ব্যবহারের জন্য কোনও এমুলেটর দরকার না হলেও উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটারে এন্ড্রোয়েড অ্যাপ চালানোর জন্য পৃথক এমুলেটর ডাউনলোড করে ইনস্টল করতে হবে। চলুন উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটারের জন্য কয়েকটি জনপ্রিয় এন্ড্রোয়েড এমুলেটর সম্পর্কে বিশদে জেনে নিন।

উইন্ডোজ ১০ প্ল্যাটফর্মের জন্য জনপ্রিয়তম এন্ড্রোয়েড এমুলেটরের মধ্যে Bluestacks অন্যতম। ইতিমধ্যেই ১০ বছর পূর্ণ করছে অ্যাপটি। এই এমুলেটর ইনস্টল করে যে কোনও এন্ড্রোয়েড গেইম কম্পিউটার থেকে মাউস ও কিবোর্ডের মাধ্যমে খেলা যাবে। Battlegrounds Mobile India, Asphalt 9-এর মতো গেম খেলা ছাড়াও হোয়াটসঅ্যাপ,ইনস্টাগ্রাম-এর মতো অ্যাপগুলিও ব্যবহার করা যাবে কম্পিউটার থেকেই।

ব্লুস্ট্যাক্স – উইন্ডোজের জন্য জনপ্রিয় এ্যান্ড্রয়েড এমুলেটর

যদি আপনার কম্পিউটারে Bluestacks ধীরগতিতে চলে তাহলে ব্যবহার করতে পারেন NoxPlayer। এই এমুলেটর ব্যবহার করেও উইন্ডোজ ১০কম্পিউটারে এন্ড্রোয়েড অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে। একই সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ,ইনস্টাগ্রাম ও অ্যামাজন-এর মতো অ্যাপগুলি ব্যবহার করতে পারবেন।

আগের দুই এমুলেটরের মতো দক্ষ না হলেও Android Studio আপনার উইন্ডোজ ১০ কম্পিউটারে দ্রুত চলবে। ডেভেলপারদের জন্য এই এমুলেটর টুল তৈরি করেছে গুগল। তবে এই এমুলেটর ব্যবহার করে জেসচার সিমুলেশন, জাইরোস্কোপ সিমুলেশন, অ্যাক্সিলারোমিটারের মতো ফিচারগুলি ব্যবহার করা যাবে। ডেভেলপার চাইলে নিজের তৈরি যে কোনও অ্যাপ এই এমুলেটর ব্যবহার করে পরীক্ষা করে নিতে পারবেন।

আরও পড়ুন:  ই-পাসপোর্ট আবেদনের স্ট্যাটাস মেসেজের অর্থ জেনে নিন
Source: Howtosolveit YouTube Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.