দিন শেষে নিজেকে তরতাজা রাখবেন যেভাবে

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaলাইফস্টাইলদিন শেষে নিজেকে তরতাজা রাখবেন যেভাবে
Advertisements

সারাদিন অফিসে পরিশ্রমের পর ক্লান্ত হয়ে দৈনন্দিন নিয়মে আমরা বাড়িতে ফিরে আসি। এটা আমাদের প্রাকিতিক নিয়মে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এই নিয়মের গণ্ডির মধ্যে চলতে চলতে আমদের মন ও শরীরকে গ্রাস করে ফেলচ্ছে মানসিক চাপ। এর প্রভাব পরে আমাদের পরিবর্তিত জীবনযাত্রায়।

প্রতেকদিন কাজের পরে মন ও শরীরকে শিথিল এবং পুনরুজ্জীবিত করতে আপনাকে কিছু ‘আমার সময়’ বার করতে হবে। যে সময়টাই আপনি শুধু মাত্র নিজেকে দিবেন। জেনে নিন কিছু সেরা উপায় যেটা আপনাকে ‘আমার সময়’ উপভোগ করতে সহায়তা করবে।

সংযোগ ছিন্ন করুন

অফিস থেকে বের হওয়ার পরেও আপনি যদি অফিসের কাজের কথা ভাবতে থাকেন তাহলে সেটার খুব খারাপ প্রভাব পরবে আপনার ব্যক্তিগত জীবনে। তাই অফিসের কাজ অফিসেই রেখে আসুন।

গোসল করা

মন ও আত্মার উপর জলের একটি শান্ত প্রভাব আছে। তাই অফিস থেকে ফিরে একটি বার স্নান করে নিতে পাড়েন। ঠাণ্ডা জলে স্নান সারলে শরীরের কোষগুলি পুনরাই চাঙ্গা হয়ে উঠে। তাছাড়াও স্নান করার ফলে খুব আরাম পাওয়া যায়।

ঘরের বাইরে বের হন

অফিসে সারাটা দিন একই ঘরের মধ্যে কাজ করার পরে বাড়িতে গিয়েও বন্দি হয়ে না থেকে একটু বাইরে বের হন। না তাই বলে দূরে কথাও না ঘরের বাইরে কোনও বাগানে গিয়ে একটু বসলেন। এটে দৃশ্যমান একটি পরিবর্তন ঘটবে যেটি আপনার শরীর কে শিথিল করতে সাহায্য করবে। তাছাড়া বিশুদ্ধ বায়ুতে শ্বাস ফেলা এবং চারপাশে সবুজ গাছের পরিবেশ আপনার মনকে অফিস থেকে দূরে সরিয়ে রখবে।

সঙ্গীত শুনুন

বাড়িতে ফিরে ফ্রেশ হয়ে বিছানায় গা টা এলিয়ে দিন। এবার মিউজিক সিস্টেমে চালিয়ে দিন আপনার পছন্দের কোনো হালকা গান। মস্তিষ্কের কোষ এতে আরাম পায়। হালকা গানের ছন্দ হাইপোথ্যালামাসে এক সুখের আমেজ তৈরি করে। যা সহজেই মানসিক চাপকে দূর করে। হালকা সংগীত যা আপনার চোখ বন্ধ করতে এবং হৃদরোগকে কমাতে সাহায্য করবে।

বাচ্চাদের সঙ্গে সময় কাটান

বাড়িতে যদি কোনও বাচ্ছা থাকে তা হলে চাপ মুক্ত করতে এর চেয়ে ভালো উপায় আর নেই। বাড়ি ফিরেই কিছুটা সময় তার বা তাদের সঙ্গে কাটান।শুধু তাই নয় তাদের মতো করে মিশুন।আপনাকে সারাদিনের কাজের ক্লান্তি সরিয়ে দিতে সাহায্য করবে।


Photo by Vlad Chețan from Pexels

ক্যাটাগরিঃ লাইফস্টাইল

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.