দাম্পত্য জীবনে সুখী হতে চানঃ মেনে চলুন এই ২০টি প্রয়োজনীয় টিপস

HelloBanglaWorld - Know Everything in Banglaইসলামদাম্পত্য জীবনে সুখী হতে চানঃ মেনে চলুন এই ২০টি প্রয়োজনীয় টিপস

সুখী দাম্পত্য জীবন পেতে হলে জীবনসঙ্গীকে মানবিক আচরণ করার পাশাপাশি কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের দিকে তীক্ষ্ণ নজর রাখতে হয়। দাম্পত্য জীবনে সবাই সুখী হতে চায়। কিন্তু, এই চাওয়ার পাশাপাশি জীবনকে আনন্দময় ও সাফল্য পেতে স্বামী-স্ত্রী উভয়কে পরস্পরকে সম্মান দেখাতে হবে। তা না হলে, দাম্পত্য জীবন সুখকর হবে না। অশান্তি লেগে থাকবে।

সুখী, দীর্ঘ ও সফল দাম্পত্য জীবনের জন্য কি কি করা উচিত, সে সম্পর্কে কিছু টিপস দেয়া হলঃ

১) একে অপরকে জানিয়ে দিন যে আপনারা পরস্পরকে ভালোবাসেন।

২) একই সময়ে দু’জন একসাথে রেগে যাবেন না।

৩) সমালোচনা যদি করতেই হয়, ভালোবাসা দিয়ে বলুন।

৪) পুরোনো ভুলগুলোকে তুলে আনবেন না।

৫) কোন তর্ক জিইয়ে রেখে ঘুমাতে যাবেন না, সমাধান করে নিন আগেই।

৬) একে অপরকে উপেক্ষা করার পরিবর্তে বরং গোটা দুনিয়াকে আগে উপেক্ষা করুন।

৭) দিনে কমপক্ষে একবার একসাথে সালাত আদায় করুন।

৮) মনে রাখবেন, সকল সফল স্বামী বা স্ত্রীর পেছনে একজন শ্রান্ত পরিশ্রমী জীবনসঙ্গী থাকে যিনি সবকিছু ভুলে একটানা কাজ করে যান, অপরজনকে সচল ও সতেজ রাখতে।

৯) মনে রাখবেন, ঝগড়া করতে দুই জনের প্রয়োজন হয়।

১০) আপনি যখন কোন ভুল করে ফেলবেন, তা স্বীকার করে নিন।

১১) দিনে অন্তত একবার আপনার জীবনসঙ্গী/জীবনসঙ্গিনীর প্রশংসা করুন, কিংবা তাকে ভালোবেসে দয়ামাখা গলায় কথা বলুন।

১২) আপনার স্বামী/স্ত্রী বিছানায় যাওয়ার পর আপনি বিছানায় যেতে ১০ মিনিটের বেশি বিলম্ব করবেন না।

১৩) আপনার জীবনসঙ্গী যখন কিছু বলেন, তা মন দিয়ে শুনুন।

১৪) মনে রাখবেন, আপনার স্বামী/স্ত্রী কিন্তু একটা ক্রিকেট বা ফুটবল ম্যাচ, মুভি, সিরিয়াল, ইউটিউব ভিডিওর চেয়ে বেশি মূল্যবান।

১৫) আপনার সঙ্গিনী/সঙ্গী যখন নতুন কোন পোশাক পরে, অথবা, তার চুল ভিন্নভাবে আঁচড়ায় তখন খেয়াল করুন।

১৬) আপনাদের বিবাহবার্ষিকী এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলোকে স্মরণ রাখতে চেষ্টা করুন। উদযাপনের জন্য নয়, শুধু স্মরণ রাখা। অবশ্যই বার্ষিকী উদযাপন বৈধ নয়। তাই, উদযাপনে রূপ দেবেন না। এটা সম্পূর্ণ আপনার সঙ্গীর আবেগের সাথে সম্পর্কিত রাখুন।

১৭) আপনাদের পক্ষ থেকে আপনার সঙ্গী কাউকে কোন উপহার দিলে বা কোন কাজ করে দিলে, আপনার পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ দিন।

১৮) যিনি দেরিতে ঘুম থেকে উঠবেন, তিনি বিছানা গুছিয়ে রাখেন।

১৯) আপনার স্বামী/স্ত্রীকে যদি ক্লান্ত-পরিশ্রান্ত দেখায়, তবে তা লক্ষ্য করুন এবং তার জন্য কিছু করুন।

২০) আপনার জীবনসঙ্গী/জীবনসঙ্গিনীকে কখনো সমালোচনা করে আহত করবেন না, এবং জনসমক্ষে কখনো তাকে অপমান করবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.